Press "Enter" to skip to content

বঙ্গ বিজেপির অবস্থা খারাপ, সব একে অপরকে দালাল বলছে

জাতীয় খবর

কলকাতা : বঙ্গ বিজেপির অন্তর্গত দলাদলি এখন আর লুকানো কথা নয়।এটা স্পষ্ট যে বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং নন্দীগ্রামে মমতাকে পরাজিত করা শুভেন্দু অধিকারীর মধ্যে বিস্তর মতপার্থক্য রয়েছে।

এ বার বাংলার প্রাক্তন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনকে কেন্দ্র করে আবারও দলাদলি সামনে এসেছে।

উভয় নেতার বক্তব্যের কারণে রাজ্য বিজেপির অন্যান্য লোকেরা সমস্যায় পড়েছেন কারণ তাদের পক্ষে জনগণের মধ্যে এই প্রশ্নের সন্তোষজনক উত্তর দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

বঙ্গ বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি এবং বর্তমানে কেন্দ্রীয় সংগঠনের সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন যে নির্বাচনের আগে অনেক টাউট আমাদের দলে যোগ দিয়েছিল। এই দালালদের অনেকেই আবার পালিয়ে গেলেও কিছু দালাল এখনো দলে রয়ে গেছে।

বিজেপির অভ্যন্তরে উপস্থিত এই ধরনের দালালরাই দলের জন্য সমস্যা তৈরি করছে। তারা বলছেন, অন্য দলের দালালরা চায় না পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি শক্তিশালী হোক।যদিও তিনি তার দৃষ্টিভঙ্গিতে কারো নাম নেননি, তবে বিচক্ষণ ভঙ্গি বুঝেছেন।

এই বক্তব্যের পর তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, এটি আসলে শুভেন্দু অধিকারিকে দিলীপ ঘোষের লেখা চিঠি। এখন তার উত্তর কী, জনগণও সেই অপেক্ষায়।

বঙ্গ বিজেপির দলাদলি রুখে দিয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব

অন্যদিকে, শুভেন্দু অধিকারী শিবিরের অনেকেই বুঝতে পেরেছেন যে দিলীপ ঘোষ রাজীব ব্যানার্জির টিএমসি সফর উপলক্ষে মিঃ অধিকারীর বিরুদ্ধে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন।

প্রকৃতপক্ষে, দলে শক্তিশালী প্রবেশের পরে, শুভেন্দু অধিকারী তার দলে উপস্থিত টাউটদের বিরুদ্ধে একাধিকবার বিবৃতিও দিয়েছেন।

কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের হস্তক্ষেপে এই দুই নেতার মধ্যে টানাপোড়েন কমে গেলেও দু’জনের মধ্যে যে দূরত্ব এখনো আগের মতোই রয়েছে তা বক্তব্য থেকে স্পষ্ট।

আসলে বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে তৃণমূল ভেঙে ধুমধাম করে দলে আনা বেশিরভাগ মানুষই আবার তৃণমূল কংগ্রেসে ফিরে এসেছেন।

তাদের মধ্যে মুকুল রায়ের মতো নেতাও রয়েছেন, যারা বঙ্গীয় বিজেপিতে শুভেন্দু অধিকারী কে অতিরিক্ত গুরুত্ব দেওয়ায় অসন্তুষ্ট হয়েছিলেন।পরে মি. রাই তার পুরানো বন্ধন ব্যবহার করে অন্যান্য বিজেপি বিধায়কদের ভাঙতে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছেন।

Spread the love
More from কলকাতাMore posts in কলকাতা »
More from দেশMore posts in দেশ »
More from নতূন খবরMore posts in নতূন খবর »
More from নির্বাচনMore posts in নির্বাচন »
More from রাজনীতিMore posts in রাজনীতি »

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *