Press "Enter" to skip to content

ব্যাঙ্ক ডাকাতরা নিজের সুরক্ষার জন্য গাড়ির সামনে লোকজন কে বেঁধে রাখে

সাও পাওলো : ব্যাঙ্ক ডাকাতরা নিজের সুরক্ষার জন্য গাড়ির সামনে লোকজন কে বেঁধে রাখে

গ্রেফতারি ও পুলিশের গুলি থেকে সুরক্ষার ব্যাঙ্কডাকাতরা তাদের গাড়ির সামনে মানুষ কে

বেঁধে রাখে। যান বাহন চলার সময় এই যান বাহনের সামনে লোকজন বাঁধা থাকায়, পুলিশ

কাজ করতে সময় নেয়। তারপরও ব্যাঙ্ক ডাকাতরা শেষ পর্যন্ত পালানোর সুযোগ পায়নি।

ঘটনাটি ঘটেছে সাও পাওলোর দক্ষিণ -পূর্বের আরকাতুবা শহরে।

এই ঘটনার ভিডিও দেখুন

 

দুটি ব্যাঙ্ক ডাকাতি করার সময়ই ব্যাঙ্ক ডাকাতরা জানতে পেরেছিল যে পুলিশ তাদের খোঁজে

এসেছে। এই কারণে, সেখান থেকে পালানোর সময়, তিনি সেখানে উপস্থিত কিছু লোক কে

তাদের সাথে জিম্মি করে নেন। এই লোকগুলি কে ব্যাঙ্ক ডাকাতরা তাদের গাড়ির সামনে এবং

উপরে বেঁধে রেখেছিল। মানুষ কে এভাবে বাঁধা অবস্থায় দেখে পুলিশ তাদের গুলি বন্ধ করে

দেয়। কিন্তু এরই মধ্যে ব্যাঙ্ক ডাকাতরা তাড়া করতে থাকে। ব্যাঙ্ক ডাকাতি করার সময় এই

ডাকাতরা বিস্ফোরক দিয়ে অনেক যানবাহন উড়িয়ে দিয়েছে। প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, পুলিশের

কর্মকাণ্ডে নজর রাখার জন্য ব্যাংক ডাকাতরা তাদের পক্ষ থেকে আকাশে ড্রোন উড়িয়েছিল।

এই ড্রোনের কারণে অপরাধীরা ধারণা পেয়েছিল যে পুলিশ ব্যাঙ্কের বাইরে ঘেরাও করেছে।

ব্যাঙ্ক ডাকাতরা ড্রোন থেকে পুলিশের আগমনের তথ্য পেয়েছিল

এই তথ্যের পর, ব্যাংকে উপস্থিত কিছু লোক ডাকাতদের দ্বারা বের করে আনা হয়। এই

লোকদের গাড়ির সামনে এবং ছাদে বেঁধে রাখা হয়েছিল। এই অবস্থা দেখে ইতি মধ্যেই হামলায়

থাকা পুলিশ তাদের উপর গুলি চালায়নি। যান বাহন পার হওয়ার বিষয়টি জানার পর, পিছন

থেকে নিরাপদে গুলি করে, পুলিশ ইঙ্গিত দেয় যে তারা ডাকাতদের উপর নজর রাখছে।

এই পুরো ঘটনার সময় দুইজন স্থানীয় নাগরিক এবং একজন হামলাকারীর মৃত্যু হয়েছে বলে

জানা গেছে। ঘটনাস্থলের কাছা কাছি দাঁড়িয়ে থাকা একজন লোক বিস্ফোরণের কারণে তার

পায়ে আঘাত পেয়ে ছিল এবং তার পা কেটে ফেলতে হয়ে ছিল। যাইহোক, এত কিছুর পরেও

পুলিশ অবশেষে দুই ব্যাঙ্ক ডাকাত কে গ্রেফতার করেছে। এই ব্যাঙ্ক ডাকাতির সাথে প্রায় বিশ

জন জড়িত ছিল। তারা দশটি গাড়ি ব্যবহার করেছিল। দুজন কে গ্রেফতারের পর বাকি

অপরাধীদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

More from HomeMore posts in Home »
More from অপরাধMore posts in অপরাধ »
More from নতূন খবরMore posts in নতূন খবর »
More from ভিডিওMore posts in ভিডিও »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *