Press "Enter" to skip to content

জ্বালানির দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে মমতা ইলেক্ট্রিক স্কুটারে যাত্রা করেন

কলকাতা: জ্বালানির দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে মমতা ব্যানার্জি ইলেক্ট্রিক স্কুটারে যাত্রা করলেন |

পেট্রোলিয়ামের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান মমতা

ব্যানার্জি বৃহস্পতিবার তাঁর বাস ভবনে থেকে রাজ্য সচিবালয় ‘নাবন্না’ পর‌্যন্ত যাওয়ার জন্য

ইলেক্ট্রিক স্কুটারের পিছনের সিটে বসে যাত্রা করলেন | ইলেক্ট্রিক স্কুটারে মমতা ব্যানার্জিকে

তাঁর মন্ত্রিসভার এক সদস্য ও সিটি মেয়র ফিরহাদ হাকিম তাকে নাবন্না ইলেক্ট্রিক স্কুটারে নিয়ে

গেলেন| দক্ষিণ কলকাতার কালীঘাটে অবস্থিত মিসেস মমতা ব্যানার্জির বাড়ি থেকে নবান্ন প্রায়

৮.৬ কিলোমিটার দূরে| তিনি সাধারণত রাষ্ট্রদূত গাড়িতে করে তার অফিসে যান| মুখ্যমন্ত্রী

নবান্নে অপেক্ষারত সাংবাদিকদের বলেছিলেন, জ্বালানির দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদ তৃণমূল কংগ্রেসই

চালিয়ে যাবে| দানবীরতা বাড়ি থেকে শুরু হয়| তাই আমি এই ইলেক্ট্রিক স্কুটারে যাত্রা করে

ছিলাম| আমি সচিবালয়ের গেটের বাইরে থেকে এই কথা বলছি কারণ আমি এক রাজনৈতিক

বক্তব্য দিচ্ছি|

জ্বালানির দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদ তৃণমূল কংগ্রেসই চালিয়ে যাবে

মিসেস মমতা ব্যানার্জি বলেছিলেন, পেট্রোল, ডিজেল ও গ্যাসের দাম যেভাবে বেড়েছে তা ভীষণ

চমকপ্রদ এখন গ্যাস সিলিন্ডারগুলির দাম প্রতি ইউনিট ৮০০ টাকা| কেরোসিন পাওয়া যায় না|

তিনি অভিযোগ করলেন যে এর মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে লুট করা হচ্ছে | তিনি জিজ্ঞাসা

করেছিলেন, মোদী সরকারের পদে আসার সময় দাম কী ছিল? বর্তমানে দাম কী? তিনি

বলেছিলেন যে আগে ডিজেলের দাম কম রাখা হয়েছিল কারণ কৃষকরা ট্রাক্টর ও জল পাম্প

চালানোর জন্য এটি ব্যবহার করতেন ও বর্তমানের কৃষকদের হিতের জন্য কিছু করা হচ্ছে না|

মিসেস মমতা ব্যানার্জি আহমেদাবাদের মোটেরা স্টেডিয়ামের নাম পরিণত করার এবং এই

স্টেডিয়ামের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নাম রাখার প্রতি বিজেপির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্র

সরকারের বিষয়ে বললেন, যে কেউ জানেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কোনও দিন দেশের নাম

পরিবর্তন করতে পারবেন| তেলের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি পশ্চিমবঙ্গে মিসেস মমতা ব্যানার্জির দল

তৃণমূল কংগ্রেস বিধানসভা নির্বাচন কে নির্বাচনী সমস্যা হিসাবে দেখিয়েছে| মমতা ব্যানার্জির

সরকার ২২ ফেব্রুয়ারির মধ্যরাত থেকে ডিজেল ও পেট্রোলের রাজ্য বিক্রয় ট্যক্সে এক টাকা

কম করে দেওযা হল| রাজ্য অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র বলেছিলেন, এই পদক্ষেপ জ্বালানির দামের

বোঝা চাপিয়ে দেওয়া লোকদের ত্রাণ সরবরাহ করবে|

More from দেশMore posts in দেশ »
More from রাজনীতিMore posts in রাজনীতি »

2 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *