Press "Enter" to skip to content

প্রতিবেশী দেশগুলো কে অস্ত্র সরবরাহের সিদ্ধান্ত রাশিয়ার 

  • কাবুল বোমা হামলার পর উত্তেজনা আরও বেড়েছে

  • আতঙ্কবাদিদের প্রতি কঠোর মনোভাব

  • হেলিকপ্টারের অনুরোধও এসেছে

  • বোমা হামলার পর রাশিয়া নিজের মনোভাব পরিবর্তন করে

মাস্কো : প্রতিবেশী দেশগুলো কে অস্ত্র সরবরাহের সিদ্ধান্ত রাশিয়ার।রাশিয়ার পক্ষ থেকে

প্রতিবেশী দেশগুলো কে অস্ত্র সরবরাহের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।রাশিয়া আফগানিস্তানের সব

প্রতিবেশী দেশের জন্য এই পরিবর্তিত নীতি ঘোষণা করেছে।বস্তুত, কাবুল বিমান বন্দরে বোমা

হামলার পর হঠাৎ করেই রাশিয়ার মনোভাবের মধ্যে এই কঠোরতা দেখা গেছে। এর আগে রুশ

সরকার তালিবানদের প্রতি নরম মনোভাব প্রকাশ করেছিল।রাশিয়া অতীতেও বলেছে যে

তালিবানরা হয়তো আগের সরকারের চেয়ে ভালো ভাবে দেশ শাসন করতে পারবে। এখন

কাবুল বোমা হামলার পর তার এলাকায় আতঙ্কবাদি অনুপ্রবেশ বাড়ানোর উদ্বেগ রাশিয়া কে

তার মনোভাব পরিবর্তন করতে বাধ্য করেছে। যাই হোক, প্রথম থেকেই আতঙ্কবাদিদের প্রতি

রাশিয়ার মনোভাব শুরু থেকেই কঠোর ছিল।

প্রতিবেশী দেশ থেকে আতঙ্কবাদিদের উপর নজর রাখে রাশিয়া 

রাশিয়ার মনোভাবের এই পরিবর্তনের কারণে, রাশিয়া এবং আফগানিস্তানের মধ্যে পড়া

দেশগুলি কে পর্যাপ্ত পরিমাণে অস্ত্র সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত এবং ঘোষণা উভয়ই করা হয়েছে।

রাশিয়া জানিয়েছে, মধ্য এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশ থেকে তারা হেলিকপ্টার এবং অস্ত্র

সরবরাহের জন্য অনুরোধ পেয়েছে। পরিবর্তিত পরিস্থিতির পরি প্রেক্ষিতে রাশিয়া এই দেশগুলো

কে সামরিক সরঞ্জাম দেবে। এছাড়াও, উজবেকিস্তান এবং কাজাখস্তান কে বিশেষ রাশিয়ান অস্ত্র

সরবরাহ করা হবে কারণ এই দুই দেশের অন্যান্য সীমান্ত আফগানিস্তান সংলগ্ন। এটি থেকে এটা

স্পষ্ট যে এখন রাশিয়াও তালিবান শাসনের অধীনে সন্ত্রাসী ঘটনা বৃদ্ধির আশঙ্কা করতে শুরু

করেছে। এ কারণে তিনি প্রতিবেশী দেশ গুলো কে এ ধরনের যে কোনো আক্রমণের জন্য আগাম

প্রস্তুত করার কৌশল শুরু করেছেন। রাশিয়া প্রতিবেশী দেশগুলো কে আগাম প্রস্তুত করতে চায়

রাশিয়ার অস্ত্রের বিদেশি রপ্তানি নিয়ে কাজ করা কোম্পানির প্রধান আলেকজান্ডার মিখিভ এই

তথ্য দিয়েছেন। উজবেকিস্তান এবং কাজাখস্তানও সম্প্রতি রাশিয়ার সাথে আফগানিস্তানের

সীমানার খুব কাছাকাছি সামরিক মহড়া করেছে। বর্তমানে এই দুই দেশ থেকে আফগান

শরণার্থীদের আগমনের প্রক্রিয়া ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাশিয়া এই দুই দেশ কে সতর্কও করেছে

যে, সন্ত্রাসীরাও আফগান শরণার্থীদের ছদ্মবেশে দেশে প্রবেশ করতে পারে, তাই সবাই কে সতর্ক

থাকতে হবে।

More from HomeMore posts in Home »
More from নতূন খবরMore posts in নতূন খবর »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *