Press "Enter" to skip to content

মালালা ইউসুফজাই তালিবানদের উত্থানে মহিলাদের নিয়ে উদ্বিগ্ন

কাবুল: মালালা ইউসুফজাই তালিবানদের উত্থানে মহিলাদের নিয়ে উদ্বিগ্ন তালিবানদের

উত্থানের সাথে সাথে নোবেল বিজয়ী মালালা ইউসুফজাই সেখানে নারী দের অবস্থা নিয়ে উদ্বিগ্ন।

তার একটি ভিডিও বার্তায় তিনি বিশ্ব নেতা দের কাছে আফগানিস্তানে নারীদের অবস্থার

উন্নতি র জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করার আহ্বান জানান তিনি এ বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য

সমস্ত বিশ্ব নেতাদের কাছেও আবেদন জানিয়েছেন। তার মতে, এই দেশে তালিবান শাসন

পুনরায় আরোপ করার অর্থ হচ্ছে নারীর স্বাধীনতা শেষ হয়ে যাবে। এ কারণে যেসব নারী ও

মেয়েরা দেশে স্বাধীনতার শ্বাস – প্রশ্বাস নিচ্ছে তাদের একটি ভয়া বহ ট্র্যাজেডির মধ্য দিয়ে যেতে

হবে। এর আগেও সেখান কার মহিলারা এই ধরনের সহিংসতার মুখো মুখি হয়েছেন। মনে

করিয়ে দিন যে মালালা নিজেও পাকিস্তানে তালিবান সন্ত্রাসের শিকার হয়েছেন। মেয়ে দের স্কুলে

যেতে অস্বীকার করার প্রতি বাদ করায় তাকে গুলি করা হয়েছিল। ২০১২ সালে তাকে গুলি

করার পরই তিনি বিশ্ব আলোচনার কেন্দ্রে এসে ছিলেন। এক রকম তার জীবন বাঁচানোর পর,

তিনি ইংল্যান্ডে থাকা কালীন এই নারীর ক্ষমতায়নে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি তার

প্রচেষ্টার জন্য নোবেল পুরস্কার ও পেয়েছেন।

মালালা তালিবানের উত্থান কে মানবিক সংকট বলেছেন

মালালা তার ভিডি ও বার্তায় বলেছেন, আফগানিস্তানের এই অবস্থা একটি মানবিক সংকট।

মালালাতালিবানের উত্থান কে মানবিক সংকট বলেছেন এ জন্য বিশ্বের প্রতি টি দেশের উচিত

এটি নিয়ে চিন্তা করা এবং কিছু করা। তিনি আর ও বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ও

উচিত সংশোধন আকারে অনেক কিছু করা যাতে গোটা দেশ কে সহিংসতার আগুনে নিক্ষেপ

করা যায়। যদি আমেরিকা চায়, সে আবার তালিবানদের পিছনে ঠেলে দিতে পারে এবং

সেখানে তালিবানদের মুক্ত করতে পারে। এটি অন্তত দেশের নারী দের স্বাধীনতা নিশ্চিত

করবে। তিনি বলে ছিলেন যে, যারা বিমানের চাকায় ঝুলিয়ে পালানোর চেষ্টা করতে গিয়ে

জোর করে প্রাণ হারিয়েছেন তাদের দেখেও বোঝা যায় যে সেখানে বাস্তব পরিস্থিতি কতটা

ভীতিকর। মালালার মতে, তিনি সেখানে মহিলাদের ক্ষমতায়নের জন্য কাজ করে এমন

সংগঠনের মহিলাদের সাথে যোগা যোগ করছেন এবং তারা সবাই এই অবস্থা নিয়ে খুব উদ্বিগ্ন।

More from HomeMore posts in Home »
More from অপরাধMore posts in অপরাধ »
More from আমেরিকাMore posts in আমেরিকা »
More from নতূন খবরMore posts in নতূন খবর »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *