Press "Enter" to skip to content

ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছরে ৭৫জন শিল্পী দিয়ে নতুন ভাবে জন গন মন গান

কোলকাতাঃ ভারতের স্বাধীনতার পঁচাত্তর বছরে পঁচাত্তর জন বিশিষ্ট শিল্পীর সমন্বয়ে

শ্রুতিবৃত্ত-র  নিবেদনে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন গণ মন -র পূর্ণাঙ্গ গানটি প্রকাশ করার

অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন শুভদীপ চক্রবর্তী ও চিরন্তন ব্যানার্জী। এই অভিনব প্রয়াসে আসল

ব্যাপার হলে আমাদের জন মন গন গান কে নতূন ভাবে গাওয়া।

ভিডিও তে শুনে নিন সেই প্রস্তুতি

তবে এই নতূন ধরণের প্রয়োগধর্মী কাজ সফল হয়েছে। কেননা অনেক লোক এটাকে পছন্দ

করেছে। এমনকি ভারত সরকার এই ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছরের যে প্রোগ্রাম নিয়েছে,

তাতেও এই গানটি স্থান পেয়েছে। এই কাজে মানে শুভদীপ-চিরন্তনের পরিচালনায় সাঙ্গীতিক এই

প্রয়াসে সামিল হয়েছেন উষা উত্থুপ, অনুপম রায়, ইমন চক্রবর্তী, লগ্নজিতা, সোমলতা, ইন্দ্রানী

সেন, জোজো, রূপঙ্কর বাগচী, রাঘব চট্টোপাধ্যায়, মনোময় ভট্টাচার্য,সুরজিৎ,সিধু, প্রবুদ্ধ রাহা,

অদিতি গুপ্ত,মনোজ মুরলি নায়ার,ঋদ্ধি বন্দ্যোপাধ্যায়, শমীক পাল সহ এই তরুণ প্রজন্মের সমস্ত

সংগীতশিল্পীরা।

সামিল হয়েছেন বাচিক শিল্পীদের মধ্যে সতীনাথ মুখোপাধ্যায়, সুমন্ত্র সেনগুপ্ত, প্রণতি ঠাকুর,

শোভনসুন্দর বসু, রায়া ভট্টাচার্য, মধুমিতা বসু, মৌনিতা চ্যাটার্জী, অন্তরা দাস প্রমুখ। চলচ্চিত্র

অঙ্গনের শিল্পীদের মধ্যে চিরঞ্জিত চক্রবর্তী, দেবশ্রী রায়, পরিচালক গৌতম ঘোষ কণ্ঠ

মিলিয়েছেন এই গানে।রয়েছেন নৃত্যগুরু থাঙ্কমনি কুটটি ও তনুশ্রী শংকর, ডোনা গাঙ্গুলীদের

সাথে অর্ণব বন্দ্যোপাধ্যায় , দীপতাংশু পাল, গার্গী নিয়োগী, রুদ্রাভ নিয়োগী, ঝিনুক মুখার্জী,

শতাব্দী আচার্য ,রুমেলি, কঙ্কনা,অপরূপা সহ বিভিন্ন ঘরানার নৃত্যশিল্পীরা। সংগীত পরিচালনা

করেছেন চিরন্তন।শুভদীপএর ভাবনায় এই কাজের মধ্যে উঠে এসেছে বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্যের

চিরকালীন বার্তা।দৃশ্যনির্মান ও সম্পাদনা করেছেন অরুনাভ খাসনবিস। শব্দগ্রহণ ও মিশ্রনে

ছিলেন এস গোপাল।

ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বছরে কেন্দ্র সরকারের সূচিতে স্থান 

ভারত সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের আজাদী কি অমৃত মহোৎসব -অনুষ্ঠানে এই নির্মানটি

পরিবেশিত হয়েছে।গানটি আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশিত হয় সিস্টার নিবেদিতা ইউনিভার্সিটিতে

একটি বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। প্রকাশ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মাননীয় সত্যম

রায়চৌধুরী। গানটি পরিবেশন করেন আড্ডাটাইমস। শুভদীপ-চিরন্তনের আরো বেশ কিছু

পরিকল্পনা রয়েছে ভারতের স্বাধীনতার হীরক জয়ন্তী উজ্জাপনকে কেন্দ্র করে। পশ্চিম বঙ্গ

থেকে যে কাজটিকে মানে গানটিকে ভারত সরকার স্বীকার করেছে, সেটি এই গান। এতে সব

বিশিষ্ট শিল্পীরা নিজেদের ভাবে এই গানটিকে গেয়েছেন। তবে লোকেদের শ্রদ্ধার কথা মনে রেখে

গানের সুর পাল্টানো হয় নি। বলে রাখা ভাল যে এর আগে একবার মহালয়ার সময়ে নতুন

ধরনের প্রয়োগ করার প্রচেষ্টা ব্যার্থ হয়েছিলো কেননা সেই প্রোগ্রাম টা নিয়ে খুব বেশি আলোচনা

হবার পরে আকাশবাণী তার পর থেকে মহালয়ার পুরাতন প্রোগ্রামে আর কোন দিন পরিবর্তন

করেনি। সেই হিসেবে ভারতের স্বাধীনতার এই নতুন প্রচেষ্টা সফল বলে মনে করা যায়।

More from HomeMore posts in Home »
More from কলকাতাMore posts in কলকাতা »
More from দেশMore posts in দেশ »
More from নতূন খবরMore posts in নতূন খবর »
More from ভিডিওMore posts in ভিডিও »

2 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *