Press "Enter" to skip to content

নৌকায় বজ্রপাতের ঘটনায় ঘটনাস্থলেই সতেরো জনের মৃত্যু

  • হাসি খুশী পরিবার এক নিমেষেই নষ্ট হয়ে গেল

  • এই সমস্ত লোক বৌভাতে নৌকায় যাচ্ছিল

  • অনেকের অবস্থা এখনও সংকটাপন্ন

আমিনুল হক

ঢাকা: নৌকায় বজ্রপাতের এর আগে ঘটনা শোনা যায়নি। কিন্তু এরকম একটি দুর্ঘটনায়

বাংলাদেশে নৌকায় করে সতের জন মানুষ মারা যায়। এখন পর্যন্ত, এটি কীভাবে ঘটেছে সে

সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নেই। আসলে, বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য নৌকায় যাওয়ার সময়, সমস্ত

মানুষ পারস্পরিক হাসিতে ব্যস্ত ছিল। নৌকায় থাকা লোকজন কিভাবে হঠাৎ বজ্রপাতের কবলে

পড়লো তার কোন তথ্য দিতে পারেনি। শুধু এই তথ্য পাওয়া গেছে যে নৌকায় উপস্থিত অন্যান্য

লোকেরাও বজ্রপাতে নৌকায় 17 জন লোকের আকস্মিক মৃত্যুতে বিস্মিত হয়েছিল। যারা

এই ঘটনায় বেঁচে গেছেন তারা তাদের চারপাশের অবস্থা দেখে কিছুই বুঝতে পারেননি। বিয়ের

মতো সুখের পরিবেশ এক ধাক্কায় শোকের মধ্যে পরিণত হয়। নারায়ণপুর গ্রামের মানুষের সঙ্গে

এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। তারা নৌকায় করে বিয়ের বৌভাতে যাওয়ার সময় শিবগঞ্জ এলাকায়

আসছিল। আসলে বিয়েটা আগেই হয়ে গিয়েছিল। বৌভাতের আচার অনুষ্ঠানে যোগ দিতে

পরিবার একত্রিত হচ্ছিল। জাহাজে থাকা সবাই ছিল পরিবারের সদস্য বা ঘনিষ্ঠ বন্ধু। নৌকা

করে বৌভাতে যাবার সময় স্বাভাবিক ভাবে সবাই হাসি খুশী আর নিজেদের মধ্যে কথা বার্তা

চালিয়ে যাচ্ছিলো। এই সময়েই হঠাত কর এই ঘটনা ঘটে। নৌকায় বজ্রপাতের ঘটনায় যারা

আহত হয়েছেন তারাও এই ব্যাপারে এখন কিছূ বলার অবস্থায় নেই। 

নৌকায় বজ্রপাতের এই ঘটনা ঘটেছে পদ্মা নদীতে

হঠাৎ, নৌকা চাপিনবাবগঞ্জের পদ্মা নদীতে থাকা অবস্থায় বজ্রপাতে নৌকায় আঘাত হানে।

সাধারণত নৌকায় বজ্রপাতের ঘটনা অতীতে শোনা যায়নি। ঘটনা সম্পর্কে, সেখানকার

প্রশাসনিক কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন যে সমস্ত মৃতদেহ সেখান থেকে বের করে উপজেলা

স্বাস্থ্য কেন্দ্র কপ্লেক্সে আনা হয়েছে। এই বোটটিতে আরো বেশ কয়েকজন মানুষ এই বজ্রঝড়ের

কারণে আহত হয়েছেন এবং তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। শিবগঞ্জ থানার

ইনচার্জ ফরিদ হুসেনও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি নিজেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন।

নিহতদের মধ্যে পাঁচজন মহিলাও ছিলেন।

More from HomeMore posts in Home »
More from নতূন খবরMore posts in নতূন খবর »
More from বাংলাদেশMore posts in বাংলাদেশ »

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *