Press "Enter" to skip to content

বস্তায় ছেলের মৃতদেহ ভরে পোস্টমার্টম করাতে বের হলেন

  • সোশাল মিডিয়ায় ছবি হল ভায়রাল
  • তথ্য পেয়ে রেগে উঠলেন সীএম
  • পুলিস সদর দফতর থেকে নির্দেশ দেওয়া হল

ভাগলপুর : বস্তায় ভরে ছেলের লাশ কাঁধে নিয়ে হেঁটে যেতে হয়েছিল তাঁকে। এই লাশটি

পোস্টমর্টেমের জন্য প্রেরণের জন্য পুলিশ কোনও ব্যবস্থা করেনি।মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার যখন

কোনও উপায়ে এই জাতীয় উদাসীনতা সম্পর্কে জানতে পেরেছিলেন, তখন তিনি ক্ষিপ্ত হন।

বিহারের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে ইতিমধ্যে তিনি অত্যন্ত ক্ষুব্ধ।

ভিডিও তে দেখে নিন পূরো ঘটনাটি যে কি হয়েছিলো

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে আন্ডার ইন্সপেক্টর রাজদেব রমন এবং আন্ডার ইন্সপেক্টর নন্দলাল

চৌধুরীকে এই মামলায় তাত্ক্ষণিক প্রভাব দিয়ে বরখাস্ত করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর তীক্ষ্ণ

মনোভাব অনুধাবন করে তাড়াহুড়ো করে পুলিশ সদর দফতর থেকে দুই কর্মকর্তার সাময়িক

বরখাস্তের আদেশও সংশ্লিষ্ট জেলায় প্রেরণ করা হয়েছে।আসলে নবগাছিয়ার গোপালপুর থানার

তেঁতঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা তেজু যাদবের ছেলে হঠাৎ নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিল।এটি নিখোঁজ হওয়ার

তথ্য থানায় দায়ের করা হয়েছিল।৩ মার্চ গঙ্গায় তাঁর বিকৃত লাশ উদ্ধার করা হয়।বিশ্বাস করা

হয় যে তিনি গঙ্গা পার হওয়ার সময় ডুবে গিয়েছিলেন।এ কারণে তার লাশ ভেসে গেছে।

কাটিহারের খেরিয়া গঙ্গার ঘাটের কাছে থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

বস্তায় মৃতদেহ নিয়ে যেতে দেখে লোকেরা অবাক হন

তথ্যের ভিত্তিতে স্থানীয় পুলিশ সেখানে পৌঁছে নিখোঁজ ১৩ বছরের ছেলের বাবাও পালিয়ে যায়।

পুলিশ লাশ ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণের কোনও ব্যবস্থা করেনি। বাধ্য হয়ে বাবা মৃতদেহটি

একটি প্লাস্টিকের বস্তার মধ্যে ভরে দিয়ে পায়ে হেঁটে থানায় পৌঁছেছিলেন।এদিকে, এই ঘটনার

তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত হওয়ার পরে বিহারের মুখ্যমন্ত্রীকে তথ্য পৌঁছে দেওয়া

হয়েছিল।এই অবস্থা দেখে ইতিমধ্যে রাগান্বিত নীতীশ কুমার আগুনে জ্বলে উঠেছিলেন, বলা হয়।

তার নির্দেশে গোপালপুর থানার আন্ডার পুলিশ ইন্সপেক্টর রাজদেব রমন এবং কুরসেলা থানার

সহকারী আন্ডার ইন্সপেক্টর নন্দলাল চৌধুরীকে এই বিভ্রান্তির জন্য দায়ী করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর

প্রত্যক্ষ হস্তক্ষেপে, এসডিপিও কাটিহার সদর বিষয়টি তদন্ত করে এই দুই কর্মকর্তার দোষের কথা

জানিয়েছেন। এই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে উভয় কর্মকর্তাকে তাত্ক্ষণিক প্রভাব দিয়ে সাময়িক

বরখাস্ত করা হয়েছে। পুলিশ সদর দফতরে প্রকাশিত তথ্যে উল্লেখ করা হয়েছে যে বিহার পুলিশ

মানবাধিকার সুরক্ষায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তাই, এ জাতীয় অবহেলার কোনও তথ্য যদি সামনে

আসে, তবে তাত্ক্ষণিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

More from অপরাধMore posts in অপরাধ »
More from ঝারখণ্ডMore posts in ঝারখণ্ড »
More from ভিডিওMore posts in ভিডিও »

One Comment

  1. […] বস্তায় ছেলের মৃতদেহ ভরে পোস্টমার্টম…By Mistu Poddarসোশাল মিডিয়ায় ছবি হল ভায়রাল তথ্য পেয়ে রেগে উঠলেন সীএম পুলিস সদর দফতর থেকে নির্দেশ দেওয়া হল ভাগলপুর : বস্তায় ভরে ছেলের লাশ কাঁধে নিয়ে… Leave a Comment […]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *