Press "Enter" to skip to content

সরস্বতী পূজা থেকে প্রতিমা বিসর্জনের পর‌্যন্ত এই বিষয়গুলিতে বিশেষ নজর

  • সোশ্যাল মিডিযার উপর পুলিসের বিশেষ নজরদারি

  • প্রদাহজনক সংগীত হবে নিষিদ্ধ: ডীজীপী

  • পাটনা থেকে সমস্ত জেলায় বিশেষ নির্দেশনা

দীপক নারাঙ্গী, 

ভাগলপুর: সরস্বতী পূজা থেকে প্রতিমা বিসর্জনের পর‌্যন্ত এই বিষয়গুলিতে বিশেষ নজর |

সরস্বতী পূজা থেকে মায়ের প্রতিমার বিসর্জন পর‌্যন্ত এই বিষয়গুলির উপর বিশেষ নজর রাখা

উচিত| সরস্বতী পূজা প্রসঙ্গে, রাজ্যের ডিজিপি সঞ্জীব কুমার সিংহল সমস্ত জেলার এসএসপি এবং

এসপিকে পর‌্যাপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা করার জন্য নির্দেশনা দিয়ে ছিলেন| ডিজিপি জানিয়েছেন যে

পুজোর সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষ নজরদারি করা হবে| ভিডিওতে কিছু নির্দেশ জারি করা

হয়েছে কিনা তা ৱুঝুন, ডিজিপির নির্দেশের পরেও, বিলের কোনও জেলায় নিয়ম না মেনে যদি

কোনও গাফিলতি করতে পাওয়া যায়, তবে পুলিশ সদর দফতর থেকে ব্যবস্থা নেওয়ার সম্ভাবনা

নেওয়া হবে | এই সময়ে, অশ্লীলতা এবং প্রদাহজনক সংগীত সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ হবে এবং যারা এটি

লঙ্ঘন করেছে তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ আইনের হিসেবে ব্যবস্থা নেবে| বিশেষত সাম্প্রদায়িক

সংবেদনশীল জেলাগুলিতে পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে| ডিজিপি নির্দেশ দিয়েছেন যে

কোভিড-১৯ সম্পর্কিত কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার যে নির্দেশিকা জারি করেছে তা কঠোরভাবে

অনুসরণ করা উচিত | পূজা করার পূর্বে পূজা কমিটিগুলির সাথে কথা বলা এবং কোভিড-১৯

সংঘটিত সংক্রমণের ঝুঁকি সম্পর্কে তাদের অবহিত করার জন্য, প্যান্ডেলগুলি তে ভক্তদের

মধ্যে যথাযথ সোশ্যাল ডিস্টেন্সিঙ্গ রাখা উচিত, স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করা উচিত, প্যান্ডেলে

প্রবেশের আগে প্রতিটি ব্যক্তির মুখে মুখোশ রাখা উচিত এবং কোভিড দ্বারা অনুপ্রাণিত করা

হবে|

সরস্বতী বিসর্জন শোভযাত্রায় সময় জড়িত ব্যক্তির সংখ্যা সীমাবদ্ধ থাকবে

অন্যান্য প্রয়োজনীয় প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য প্রতিমাগুলির বিসর্জন স্থাপনের

জন্য বিসর্জন শোভাযাত্রায় জড়িত ব্যক্তির সংখ্যা যথাসম্ভব সীমাবদ্ধ হওয়া উচিত| বিসর্জনে

জড়িত প্রত্যেকে মুখোশ ব্যবহার করবে| আবির ও গুলাল বিসর্জন মিছিলে নিষিদ্ধ থাকবে|

আরবির গুলাল শোভাযাত্রার জন্য একে অপরকে স্পর্শ করলে করোনার সংক্রমণের প্রবল

সম্ভাবনা থাকবে তাই আবির গুলাল শোভাযাত্রার সময় নিষিদ্ধ করা হল | সরস্বতী পূজা থেকে

শুরু করে প্রতিটি বিষয়ে, পুলিশ পূজা অবধি পূর্বে থানা স্তর থেকে জেলা পর‌্যায়, সর্বদা শান্তি

কমিটির সভা করা উচিত| দুষ্টু উপাদান গুলির বিরুদ্ধে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা

উচিত| বিতর্কিত স্থানে প্রতিমা ও পূজা প্যান্ডেল স্থাপন বন্ধ করা উচিত| বিতর্কিত কার্টুন, ঝালাই

নিষিদ্ধ করা উচিত| ১০০ শোভাযাত্রার লাইসেন্স (শর্ত সাপেক্ষে) জারি করা উচিত হবে| বিসর্জন

রুটের শারীরিক পরিক্ষা করা হবে| বিতর্কিত রুটে যেতে নিষেধ করুন| বিসর্জন শোভাযাত্রার

ভিডিওগ্রাফি করার স্বীকৃতি দেওয়া হল| বিসর্জন মিছিলগুলিতে অস্ত্র প্রদর্শন নিষিদ্ধ করা হল|

সংবেদনশীল জায়গায় ফোর্স এবং এখতিয়ার গুলি ডেপুট করা উচিত| ডিজে নিষিদ্ধ করুন,

অশ্লীলতা এবং প্রদাহজনক সংগীত নিষিদ্ধ করুন| বিসর্জন ঘাটগুলি পর‌্যালোচনা করার আগে

প্রয়োজনীয় প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া উচিত| বিসর্জন ঘাটগুলিতে ফোর্স, ম্যাজিস্ট্রেট,

মেডিকেল কর্মী, ডুৱুরি, এসডিআরএফ এবং অ্যাম্বুলেন্সের ডেপুটেশন|জোর করে দান নিষিদ্ধ

করা উচিত| পুজোর সময পুলিসের দ্বারা সোশ্যাল মিডিয়া নিরীক্ষণ করা হবে|

More from ঝারখণ্ডMore posts in ঝারখণ্ড »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *