Press "Enter" to skip to content

জেএমএম-কংগ্রেস প্রথমবার ঝাড়খণ্ডের সাথে বিশ্বাসঘাত করেনি : সুদেশ মাহাতো

  • পাকুরে কর্মিদের সম্মেলন-সরকারের উপর টার্গেট

  • গ্রামের সরকার অফিসারদের নির্দেশে কাজ করেন

  • এখানে আৱুয়া রাজ নয় বাৱুদের রাজ চলে

রাঁচি : জেএমএম-কংগ্রেস প্রথমবার ঝাড়খণ্ডের সাথে বিশ্বাসঘাত করেনি  আজসু দলীয়

ইউনিয়নের সভাপতি সুদেশ কুমার মাহাতো বলেছেন যে হেমন্ত সোরেনের সরকার করোনার

সংক্রমণের মুখ আর কতক্ষণ গোপন করবে|কোনও সুযোগই বাকি নেই যখন রাষ্ট্রপ্রধান বলছেন

যে করোনার যুগ চলে যাবে, তখন রাজ্যটিকে উন্নয়নের পথে নিয়ে যাওয়া হবে| বাস্তবতা হ’ল

ঝাড়খণ্ডির জনসাধারণ ও মানসিকতার সাথে জেএমএম-কংগ্রেস বিশ্বাসঘাতকতা করার এই

প্রথম নয় |এটি একটি দীর্ঘ রেকর্ড আছে|পাকুর বিধানসভার রাজওয়ালী কোটালপোখরে

অনুষ্ঠিত আ জেএসইউ পার্টির বিধানসভা স্তরের কর্মী সম্মেলনে সুদেশ কুমার মাহাতো

সরকারকে তীব্রভাবে টার্গেট করেছিলেন|এজেএসইউ প্রধান জানান, পঞ্চায়েত নির্বাচন

পরিচালনা না করায় গ্রাম সরকার কর্মকর্তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে| জেএমএম জল, বন,

জমি এবং জেএমএম স্লোগান সুরক্ষার লক্ষ্য নিয়ে কংগ্রেস রাজ্যে বালু, পাথর এবং খনিজ সম্পদ

লুট করেছে|মধ্যরাতে ধর্নায় বসে থাকা যুবকদের মারধর ও মারধর করা হয়|পারদ শিক্ষক

আবারও আন্দোলনের পথে এসেছেন|তিনি বলেছিলেন যে এখানে আৱুয়ার বিধি নয়, বাৱুদের

শাসন |

জেএমএম-কংগ্রেসের সরকারে মাফিয়াদের শাসন চলছে

মহাজোট সরকারে ভূমি মাফিয়া, বালু মাফিয়া এবং কাঠ মাফিয়াদের শাসন চলছে|লকডাউনের

সময় সাত লাখ প্রবাসী ফিরে এসেছিল, তাদের উচিত রাজ্যের অভিবাসী শ্রমিকদের সম্পর্কে

সরকারী রেকর্ড তৈরি করা উচিত, তারা কোন অবস্থার অধীনে এবং তারা কোথায় রয়েছে|

ফিরে আসা যুবকদের সরকার কোথায় এবং কী চাকরি দিয়েছে|তিনি বলেছিলেন যে এখানে

আৱুয়ার বিধি নয়, বাৱুসের শাসন|মহাজোট সরকারে ভূমি মাফিয়া, বালু মাফিয়াস এবং কাঠ

মাফিয়াদের শাসন চলছে|মধ্যস্বত্বভোগী ও সরকারী লোকেরা ধনী হচ্ছে|নির্বাচনের আগে

জেএমএম সংকল্পের একটি চিঠি জারি করেছিল|ক্ষমতাসীনদের তাদের সেই চিঠিটি পড়া উচিত|

এটি প্রতিশ্রুতি মনে রাখবে|এজেএসইউ পার্টি প্রতিটি চৌক, হর পঞ্চায়েত, হার গ্রাম“মহল্লায় কর্মী

প্রস্তুত করবে|সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গিরিডিহ এমপি ও দলের সিনিয়র সহ“সভাপতি

চন্দ্রপ্রকাশ চৌধুরী বলেছেন, কর্মী চাইলে সবকিছু সম্ভব|এবং আমাদের কর্মীরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে

যে সময়টি আমাদের জন্য থাকবে|একসাথে আমরা একটি নতুন এবং শক্তিশালী ঝাড়খন্ড তৈরি

করব|সম্মেলনে দলের প্রাক্তন মন্ত্রী রামচন্দ্র সাহিস, উমাকান্ত রাজাক, বিধায়ক লম্বোদার

মাহাতো, পাকুর বিধায়ক আকিল আক্তার, প্রাক্তন বিধায়ক কুশওয়াহা শিবপুজান মেহতা, প্রধান

কেন্দ্রীয় মুখপাত্র ডঃ দেবশরণ ভগত, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গঙ্গা নারায়ণ সিং প্রমুখ

উপস্থিত ছিলেন|

More from ঝারখণ্ডMore posts in ঝারখণ্ড »
More from নতূন খবরMore posts in নতূন খবর »
More from রাজনীতিMore posts in রাজনীতি »

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *